নানাবিধ আয়োজনের মধ্যে দিয়ে পহেলা বৈশাখ উদযাপন

ফিরে এলো পহেলা বৈশাখ। শুরু হলো নতুন একটি বছর ১৪২৪ বঙ্গাব্দ। জীর্ণ, অশুভ, অসুন্দর সব কিছু পিছনে ফেলে নতুনের কেতন উড়িয়ে বাঙ্গালি বরণ করে এই দিনকে। বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় “মুছে যাক গ্লানি ঘুচে জ্বরা, অগ্নিস্নানে সূচী হোক ধরা ” শ্লোগানকে সামনে রেখে মঙ্গল শোভাযাত্রা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজনের মধ্য দিয়ে পহেলা বৈশাখ উদ্যাপন করেছে।

বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজলা ও তালাইমারি ক্যাম্পাসের দুই প্রান্তেই সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানসমুহে পালাক্রমে উপস্থিত ছিলেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপদেষ্টা, যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত প্রফেসর ড. এম. সাইদুর রহমান খান, উপাচার্য প্রফেসর ড. এম. ওসমান গনি তালুকদার, উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. নূরুল হোসেন চৌধুরী, অর্থনীতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. তারিক সাইফুল ইসলাম, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর ড. এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান, ‘ইইই’ বিভাগের কো-অর্ডিনেটর মুহাম্মদ সাজ্জাদুর রহিম, ‘সিএসই’ বিভাগের কো-অর্ডিনেটর  প্রফেসর ড. খাদেমুল ইসলাম মোল্লা, প্রক্টর শাহরিয়ার হোসেন তালুকদার, এ্যাসিস্ট্যান্ট প্রক্টর ফয়সাল ইমরান ও বিজনেস এ্যাডমিনিস্ট্রেশন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. শেখ শামসুল আরেফিন সহ শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ।

সকাল ৮.৩০মিনিটে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজলা ভবন থেকে বের হয় মঙ্গল শোভাযাত্রা। ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ডসহ বর্ণিল মঙ্গল শোভাযাত্রাটি তালাইমারি ক্যাম্পাস প্রাঙ্গন হয়ে আবার কাজলায় ফিরে আসে। শিক্ষার্থীরা নানা ধরনের শ্লোগান দিয়ে শোভাযাত্রাটি আরো প্রাণচঞ্চল করে তোলে। এরপর কাজলা ও তালাইমারি ভবনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসমুহে ছিল গান, নাচ, কবিতা আবৃত্তি, কৌতুক এবং দেশীয় পোশাক, বাঁশি, একতারা, দোতারা সম্বলিত ঐতিহ্য প্রকাশের ফ্যাশন শো।  

 

© Copyright 2015 Varendra University | Developed by IT Department, Varendra University.