‘জেসিএমএস রিপোটার্স টক’-এ প্রখ্যাত সাংবাদিক জুলফিকার আলি মাণিক

ক্যাপশন: রাজাশহীতে অবস্থিত বরেন্দ্র বিদ্যালয়ের জার্নালিজম, কমিউনিকেশন অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগ ‘জেসিএমএস রিপোটার্স টক’ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন প্রখ্যাত অনুসন্ধানী সাংবাদিক জুলফিকার আলি মাণিক ।

 

রাজশাহীতে অবস্থিত বরেন্দ্র বিদ্যালয়ের জার্নালিজম, কমিউনিকেশন অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগ-এর নিয়োমিত আয়েজন ‘জেসিএমএস রিপোটার্স টক’-এ শিক্ষার্থীদের পেশাগত অভিজ্ঞতার বৈচিত্রময় গল্প শোনান প্রখ্যাত অনুসন্ধানী সাংবাদিক জুলফিকার আলি মাণিক।

বিভাগের শিক্ষাসংশ্লিষ্ট কার্যক্রমের অংশ হিসেবে আয়োজিত অনুষ্ঠানটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজলা ভবনে অনুষ্ঠিত হয় গত ১৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার।  

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে জনব মাণিক বলেন, একজন রিপোর্টারের সবচেয়ে বড় সম্পদ হলো তার পাঠক-দর্শক-শ্রোতা। কাজেই যারা ভবিষ্যতে সাংবাদিকতায় আসতে চায় তাদের এমন কাজ করতে হবে যাতে পাঠক-দর্শক-শ্রোতার মন জয় করা যায়। আর এই মন জয় সম্ভব কেবলই ভালো কাজ দিয়ে।

তিনি বলেন, সাংবাদিকতা একটি নিবেদনের বিষয়। এখানে সফল হতে হলে ধৈর্য্য ধরে দীর্ঘ মেয়াদে কাজ করতে হবে। আর মিশে যেতে হবে সাধারণ মানুষের সঙ্গে। কেননা এসব মানুষের যাপিত জীবনের অভিজ্ঞতা থেকেই অনেক বড় বড় সংবাদের ধারণা পাওয়া যায়।

তিনি আরও বলেন, সাংবাদিকতর শিক্ষার্থীরা যেমন পাঠ্যপুস্তক থেকে জ্ঞান অর্জন করবে তেমনি পেশাগত দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে কাজে লাগাবে সাধারন জ্ঞানকে। এই জ্ঞান পরিক্ষায় পাশের জন্য অর্জিত জ্ঞান নয় বরং এটি মানবীয় সহজাত প্রবৃত্তিগত।

নিজের পেশাগত জীবন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতা বিভাগে পড়ার আমার সুযোগ হয়নি। পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বিভিন্ন বাধার মুখোমুখি হয়েছি, শিখেছি সেখান থেকেই।”

এছাড়াও তিনি শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

এর আগে, বিভাগের কো-অর্ডিনেটর ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণাযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. মশিহুর রহমান শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন। অনষ্ঠানে বিভাগের শিক্ষক আমিনুল ইসলাম ও সালমা জান্নাত এবং বিভিন্ন সেমেস্টারের শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।  

সাংবাদিক জুলফিকার আলি মাণিক বাংলাদেশের অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় অন্যতম পথিকৃত। দীর্ঘ ২৭ বছরের ক্যারিয়ারে তিনি কাজ করেছেন দেশের শীর্ষস্থানীয় জাতীয় দৈনিক সংবাদপত্র, সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন, রেডিও ও টেলিভিশন চ্যানেলে। তিনি দেশের শীর্ষ স্থানীয় ইংরেজি দৈনিক দ্য ডেইলি স্টারের চীপ রিপোর্টার ও ইনভেস্টিগেটিং রিপোর্টিং সেল এর প্রধান ছিলেন। তিনি কাজ করেছেন ইংরেজি দৈনিক ঢাকা ট্রিবিউন-এর বিশেষ সংবাদদাতা ও প্ল্যানিং এডিটর হিসেবে।

দেশের গণমাধ্যমের পাশাপাশি জনাব মাণিক বিদেশি ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেও কাজ করে আসছেন দুই দশকের বেশি সময় ধরে। তিনি গত ১২ বছর ধরে বিশ্বজুড়ে সমাদৃত আমেরিকার দৈনিক পত্রিকা দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসের জন্য সাংবাদিকতা করছেন, বাংলাদেশে ঐ পত্রিকার প্রদায়ক হিসেবে। এছাড়াও আমেরিকার পি.বি.সি টেলিভিশন চ্যানেল, বৃটেনের টেলিভিশন চ্যানেল ফোর, সাপ্তাহিক সানডে মেইল, ইংরেজি টেলিভিশন চ্যানেল আল জাজিরা, নেদারল্যান্ডসের টেলিভিশন চ্যানেল এন ও এস, ফ্রান্সের আন্তর্জাতিক বেতার রেডিও ফ্রান্স ইন্টারন্যাশনাল, ভারতের স্বনামখ্যাত সাপ্তাহিক পত্রিকা আউটলুক সহ বিভিন্ন বিদেশি গণমাধ্যমে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতা রয়েছে জনাব জুলফিকার আলি মাণিকের।

জনাব মাণিক দেশে তাঁর আড়াই দশকের বেশি সাংবাদিকতায় বহু পুরস্কার জিতেছেন যার মধ্যে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার জন্য পাওয়া বাংলাদেশ প্রেস ইন্সটিটিউটের পিআইবি-সোহেল সামাদ পুরস্কার ২০০০, ইউনেস্কো-বাংলাদেশ সাংবাদিকতা পুরস্কার, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরস্কার, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির অনুসন্ধানী পুরস্কার বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

 

 

© Copyright 2015 Varendra University | Developed by IT Department, Varendra University.