ফার্মেসী বিভাগের বিশ্ব এ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল সচেতনতা সপ্তাহ-২০২০ পালন

 বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী বিভাগ প্রতি বছরের মত এ বছরও ২৪ নভেম্বর “United to Preserve Antimicrobials” এই স্লোগানে “বিশ্ব এ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল সচেতনতা সপ্তাহ-২০২০” পালন করে। বর্তমান করোনা ভাইরাস প্রেক্ষাপটের কারণে এই বছর বিশ্ব এ্যান্টিবায়োটিক সচেতনতা সপ্তাহ-২০২০ এর সকল আয়োজন ভার্চুয়াল প্লাটফর্ম মাইক্রোসফট টিমস এর মাধ্যমে পরিচালনা করা হয়। এ উপলক্ষে সকাল ১০.৩০ মিনিটে বিভাগীয় কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর ডঃ মোঃ একরামুল ইসলামের সভপতিত্বে এবং ৯ম ব্যাচের শিক্ষার্থী মিম ইয়াসমিনের সঞ্চালনায় ভার্চুয়াল সেমিনারের সূচনা করা হয়। বিশ্ব এ্যান্টিবায়োটিক সচেতনতা সপ্তাহ-২০২০ উপলক্ষ্যে আয়োজিত এই আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের  বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত উপ-উপাচার্য প্রফেসর শহীদুর রহমান। বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. ফিরোজ আহমেদ এবং রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজিস্ট ডা. খন্দকার ফয়সাল আলম। বিভাগের অন্যান্য শিক্ষক এবং ছাএ-ছাএীরাও উপস্থিত ছিলেন। সেমিনারের শুরুতে বিশ্ব এ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল সচেতনতা সপ্তাহ-২০২০ এর প্রেক্ষাপটে এ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্টেন্স সম্পর্কিত এক প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী এ,কে,এম শাফিউর রহমান। তার তথ্যবহুল প্রেজেন্টেশন শেষে বক্তব্য প্রদান করেন রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজিস্ট ডা. খন্দকার ফয়সাল আলম। তিনি সেমিনারে বলেন- ১৯৮৭ সালে শেষ এন্টিবায়োটিক আবিষ্কার হয়েছিলো। এন্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্সের জন্য তিনি ডাক্তার, বিভিন্ন ফার্মেসী এবং সাধারণ মানুষকে দায়ী করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. ফিরোজ আহমেদ বলেন-২০১৬ সালের ঔষধ নীতিমালা অনুসরণ করলে সকল ওষুধের অযৌক্তিক ব্যবহার বন্ধ করা যাবে। তিনি আরও বলেন মুরগী, মাছ ও গবাদিপশুর খামারে অনিয়ন্ত্রিত ভাবে এন্টিবায়োটিক ব্যবহার হচ্ছে। সরকারি আইন ও নীতিমালা প্রয়োগের মাধ্যমে এই অপব্যবহার বন্ধের আহবান জানান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপ-উপাচার্য প্রফেসর শহীদুর রহমান তাঁর মতামত ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন- আগে পূর্ব-পুরুষরা মারা গেছে এন্টিবায়োটিকের অভাবে। এখন মারা যাচ্ছে এন্টিবায়োটিকের কারনে। বক্তব্য শেষে র্ফামা বি-ক্লাব আয়োজিত প্রবন্ধ ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা-২০২০ এর বিজয়ীদের নাম ঘোষনা করা হয়। যেখানে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার প্রথম ক্যাটাগরি ই পোস্টারে প্রথম স্থান অধিকার করেন ৫ম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী মো: মিনহাজ ইসলাম এবং দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন ৮ম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী মো: মোস্তাকিম ইসলাম। দ্বিতীয় ক্যাটাগরি হাতে আঁকা চিত্রাঙ্কনে পোস্টারে প্রথম স্থান অধিকার করেছে ২য় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী সানজিদা ইসলাম এবং দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন ৪র্থ সেমিস্টারের শিক্ষার্থী ঊর্মি আক্তার। এছাড়া প্রবন্ধ প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করেছে ৮ম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী সাবিহা আক্তার এবং দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেন ২য় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী ফাহমিদা আফরোজ। বিজয়ীদের নাম ঘোষনা শেষে সমাপনী বক্তব্য দেন সেমিনারের সভাপতি বিভাগীয় কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর ডঃ মোঃ একরামুল ইসলাম। তিনি বলেন বিশ্ব এ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল সচেতনতা সপ্তাহ-২০২০ উপলক্ষ্যে সেমিনারের পাশাপাশি ফার্মেসী বিভাগ থেকে ১৫০০ লিফলেট সাধারণ মানুষের মাঝে এন্টিবায়োটিক ব্যবহারের সচেতনতা তৈরির জন্য বিতরন করা হয়েছে। ৪০ টির মত ছোট বড় বিভিন্ন সাইজের ব্যানার শহরের বিভিন্ন স্থানে এবং ফার্মেসিগুলোতে ঝুলানো হয়েছে। সবশেষে সেমিনার আয়োজনে অংশগ্রহণকারী সবাইকে তার আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানিয়ে সেমিনার সমাপ্তি ঘোষণা করেন। সেমিনারের মূখ্য উদ্দেশ্য ছিল অ্যান্টিবায়োটিকের সঠিক ব্যবহার সর্ম্পকে জনসচেতনতা বৃদ্ধি। সেমিনার শেষে একটি কুইজ প্রতিযোগিতারও আয়োজন করা হয়।

© Copyright 2021 Varendra University | Developed by IT Office, Varendra University.