বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের আয়োজনে ‘ক্যারিয়ার অপারচুনিটিস ফর বিজনেস গ্রাজুয়েটস’ শীর্ষক ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত

গত ১২ জুন, ২০২১ শনিবার বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হল ব্যবসায় শিক্ষা শাখার শিক্ষার্থীদের জন্য ক্যারিয়ার সম্পর্কিত ওয়েবিনার ‘ক্যারিয়ার অপারচুনিটিস ফর বিজনেস গ্রাজুয়েটস’। পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের  বিভিন্ন বিষয়ে দক্ষতা অর্জন, বর্তমান যুগের প্রয়োজনীয় কর্ম দক্ষতার উন্নয়ন, কো-কারিকুলার কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করণ, এবং জীবনবোধ উন্নয়নে বিভাগ কর্তৃক আয়োজিত বিভিন্ন  কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এই ওয়েবিনারটি অনুষ্ঠিত হয়। 


অনলাইন প্লাটফর্ম  জুম ক্লাউড মিটিং এর মাধ্যমে অনুষ্ঠিত এই ওয়েবিনারে দুজন বক্তা উপস্থিত ছিলেন। টেলিকমিউনিকেশন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান রবি আজিয়াটা লিমিটেডের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক জনাব এ. কে. এম. কামরুজ্জামান এবং ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জনাব  সৈয়দ মারুফ  রেজা। 


আমন্ত্রিত দুজন বক্তা শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে ক্যারিয়ার সম্পর্কিত বিভিন্ন পরামর্শমূলক বক্তব্য রাখেন।জনাব এ. কে. এম. কামরুজ্জামানের রয়েছে বাংলাদেশে পরিচালিত বেশ কয়েকটি জাতীয় এবং বহুজাতিক  কোম্পানির প্রোডাক্ট এবং সার্ভিস মার্কেটিংয়ের ওপর  দীর্ঘ অভিজ্ঞতা। তিনি তাঁর অভিজ্ঞতার আলোকে ব্যবসায় শিক্ষা শাখার শিক্ষার্থীদের  ভবিষ্যতে চাকরির বাজারে নিজেদের টিকিয়ে রাখার জন্য প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জন করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। তিনি বলেন, ‘বর্তমানে চাকরির বাজারে প্রবেশ করতে হলে যোগাযোগ দক্ষতার কোনো বিকল্প নেই, তার সাথে প্রযুক্তিগত জ্ঞানের সমন্বয় ঘটাতে হবে।  করোনা পরিস্থিতি আমাদেরকে বুঝিয়ে দিয়ে যাচ্ছে আমরা প্রযুক্তি ব্যবহার করে এই কঠিন পরিস্থিতিতেও স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারি।  তাই প্রযুক্তির নিত্যনতুন ব্যবহার আমাদেরকে জানতে হবে এবং এই দুইয়ের সমন্বয়ই একজন শিক্ষার্থীকে অন্যদের থেকে এগিয়ে রাখতে পারে।’


ওয়েবিনারের অপর বক্তা সৈয়দ সৈয়দ মারুফ রেজা শিক্ষার্থীদের চাকরির বাজারের প্রস্তুতির পাশাপাশি উদ্যোক্তা হতে বিভিন্ন পরামর্শ দেন।  তিনি বলেন, “ শিক্ষার্থীদের উচিত শিক্ষার পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের উদ্যোগ নেয়া। সেটা  ব্যবসায়িক, সামাজিক, দাতব্য, বা অন্য যেকোনো  ধরনের উদ্যোগ হতে পারে।  শিক্ষার্থীরা নিজেদের বন্ধুদের সংঘটিত করে এসব উদ্যোগ সফল করতে পারে।  একজন শিক্ষার্থী যখন এই ছোট ছোট উদ্যোগ সফল করবে, কোন একটা টিমকে তারা নেতৃত্ব দিবে, এই ছোট ছোট সাফল্যই তাদেরকে একসময় বড় সাফল্যের দিকে ধাবিত করবে এবং এগিয়ে যেতে অনুপ্রেরণা যোগাবে”।  তাঁর আলোচনায় বর্তমান করোনা কালীন পরিস্থিতি প্রাধান্য পায়।  তিনি বলেন, “এই করোনাকাল বিশ্বব্যাপী ব্যাপক পরিবর্তন এনে দিয়েছে। এই পরিবর্তন সবার জন্য সুখবর না হলেও অনেকের জন্য বড় ধরনের সুযোগ সৃষ্টি করেছে। সুতরাং এই সময়টাকে কাজে লাগাতে হবে। শিক্ষার্থীরা এই সময়টাকে কাজে লাগিয়ে পড়াশোনার পাশাপাশি অন্যান্য স্কিল ডেভেলপমেন্ট মনোনিবেশ করতে পারে।”
 
পরবর্তীতে ওয়েবিনারের দুজন বক্তা শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। ওয়েবিনারের দুজন বক্তার মধ্যে একজন  ছিলেন শিক্ষাবিদ এবং অপরজন ছিলেন কর্পোরেট প্রফেশনাল।  তাই ওয়েবিনারের শিক্ষার্থীদের জন্য ছিল খুবই উপভোগ্য এবং কার্যকর। 

© Copyright 2021 Varendra University | Developed by IT Office, Varendra University.