Varendra University

সমাবর্তন উপলক্ষে আইন ও মানবাধিকার বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী

‘যেতে নাহি দিব হায়, তবু যেতে দিতে হয়’- এভাবেই জীবনের অমোঘ নিয়ম মেনে পালাক্রমে সমাপ্ত হয় প্রতিটি শিক্ষার্থীর শিক্ষাজীবন। কিন্তু রয়ে যায় সেদিনের প্রথম দেখার সেই তিথিটা। আর সেই সোনালী অতীত এবং আবেগঘন স্মৃতির পাতাগুলো প্রানের টানে খুলে দেখার জন্যই গত ১২ই মে ২০২২ বিকেল ৪ টায় বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন ও মানবাধিকার বিভাগ কর্তৃক ‘Meet with the Alumni’ এর আয়োজন করা হয়।

স্মৃতির ধুলোয় মিশে থাকা এই পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের মধ্যমনি আইন ও মানবাধিকার বিভাগ, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীবৃন্দ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আইন ও মানবাধিকার বিভাগের মাননীয় কো-অরডিনেটর প্রফেসর আবু নাসের মোহাম্মাদ ওয়াহিদ স্যার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়য়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ডঃ এম ওসমান গনী তালুকদার স্যার। আর বর্ণীল এই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. ফয়জার রহমান স্যার। 

অনুষ্ঠান সূচনা করেন আইন ও মানবাধিকার বিভাগের মাস্টার্স এর শিক্ষার্থী অনিতা রানী। এরপর, আইন ও মানবাধিকার বিভাগের দুইজন শিক্ষক, মাসরুর আব্দুল্লাহ আবিদ এবং রায়হানুজ্জামান সোহান সাবলীল এবং তথ্যবহুল বক্তব্য রাখেন আজকের এই পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের উদ্দেশ্যে এবং আগামী ২রা জুন, ২০২২ ইং তারিখে অনুষ্ঠিতব্য বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ম সমাবর্তন কে কেন্দ্র করে।  

অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে আইন ও মানবাধিকার বিভাগের সাবেক এবং বর্তমান শিক্ষার্থীবৃন্দের সাথে শিক্ষকদের মত বিনিময় এবং পরিচয়পর্বের পাশাপাশি সোনালী অতীতের স্মৃতিমাখা দিনগুলো তুলে ধরা হয়। অতঃপর, সাবেক এই শিক্ষার্থীবৃন্দের পেশাগত জীবনে অভাবনীয় সাফল্যে এবং দেশের শীর্ষস্থানীয় পর্যায়ে তাদের দৃষ্টান্তমূলক উপস্থিতিতে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন ও মানবাধিকার বিভাগ অত্যন্ত গর্বিত এবং দেশের সেবায় প্রতিনিয়ত এমন আলোকিত মানুষ উপহার দিতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।  

আইন ও মানবাধিকার বিভাগের মাননীয় কো-অরডিনেটর প্রফেসর আবু নাসের মোহাম্মাদ ওয়াহিদ স্যার অত্যন্ত প্রাঞ্জল, তথ্যবহুল এবং উৎসাহপূর্ণ বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি একজন শিল্পীর তুলির মত ক্যানভাসে তুলে ধরেন ‘Alumni- Association’ এর অপরিসীম গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা। শুধু প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাই নয়, বরং জীবনের মূল্যবোধ তৈরি, জীবনকে পরিশীলিত করে গড়ে তোলা এবং উদাহরণ হিসাবে নিজেকে আলোকিত মানুষে পরিণত করতে অ্যালামনাই দের তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা তুলে ধরেন স্যার। পরিশেষে, কিভাবে জীবনের লক্ষ্য অর্জন করে সফল হওয়া যায়, সে বিষয়ে মাননীয় কো-অরডিনেটর স্যার সবাইকে বিপুলভাবে উৎসাহিত করেন। এছাড়াও প্রাক্তন শিক্ষার্থীবৃন্দকে সমাবর্তনের মাহাত্ম্য সম্পর্কে ব্যাপকভাবে বিশ্লেষণ করে সমাবর্তনে যোগদানের জন্য তুমুল উৎসাহ প্রদান করেন।

আইন ও মানবাধিকার বিভাগ কর্তৃক আয়োজিত ‘পুনর্মিলনী ও চা-চক্রের’ অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর প্রফেসর ড. ফয়জার রহমান স্যার। তিনি তার আলোকিত শিক্ষাজীবনের কথা তুলে ধরে অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়াসনের তাৎপর্যপূর্ণ ভুমিকার কথা অত্যন্ত সাবলীলভাবে ব্যাখ্যা ধরেন।  

অতঃপর, প্রধান অতিথি, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ডঃ এম ওসমান গনী  তালুকদার স্যারের অত্যন্ত তাৎপর্যবহুল বক্তব্যের মধ্য দিয়ে গোধূলিলগ্নে সমাপ্ত হয় আজকের আলকিত এই চা-চক্রের পুনর্মিলনী। বক্তব্যের শুরুতে আবেগাপ্লুত মাননীয় উপাচার্য স্যার নিজের ছেলেবেলার স্মৃতিবিজড়িত গল্প তুলে ধরেন। এরপর তিনি বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়য়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীবৃন্দের সাফল্য এবং আইন ও মানবাধিকার বিভাগের সু-উচ্চ পর্যায়ের মানসম্মত লেখাপড়া দেখে অত্যন্ত গর্বের সাথে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। অতঃপর, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের আসন্ন ১ম সমাবর্তনের অমূল্য তাৎপর্যের কথা অত্যন্ত প্রাঞ্জল্ভাবে উপস্থাপন করেন। সবশেষে তিনি উপস্থিত সকল শিক্ষার্থীবৃন্দ এবং আইন ও মানবাধিকার বিভাগের শিক্ষকবৃন্দকে খুব উৎসাহের সাথে আলোকিত মানুষ হবার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবার প্রেরণা প্রদান করে তিনি তার বক্তব্য সমাপ্ত করেন।

আর, এর মধ্য দিয়েই শেষ হয় বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন ও মানবাধিকার বিভাগ কর্তৃক আয়োজিত অর্থবহুল এই চা-চক্রের পুনর্মিলনী।