নানাবিধ বর্ণিল আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে পহেলা বৈশাখ উদযাপন

গত ১৪ই এপ্রিল রোজ রবিবার বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় “মুছে যাক গ্লানি, ঘুচে যাক জরা, অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা” শ্লোগানকে সামনে রেখে মঙ্গল শোভাযাত্রা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজনের মধ্য দিয়ে পহেলা বৈশাখ উদযাপন করেছে। চৈত্রসংক্রান্তির মাধ্যমে ১৪২৫ সনকে বিদায় জানিয়ে বাংলা বর্ষপঞ্জিতে যুক্ত হয়েছে নতুন বছর ১৪২৬ বঙ্গাব্দ। জীর্ণ, অশুভ, অসুন্দর সব কিছু পিছনে ফেলে নতুনের কেতন ওড়িয়ে বাঙ্গালি বরণ করে এই দিনকে।

সকাল ৮.৩০ মিনিটে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজলা ভবন থেকে বের হয় মঙ্গল শোভাযাত্রা। ফেস্টুন, হাতপাখা, প্ল্যাকার্ডসহ বর্ণিল মঙ্গল শোভাযাত্রাটি রাজশাহী শহরের তালাইমারির বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের প্রধান ফটক হয়ে আবার কাজলায় ফিরে আসে। শিক্ষার্থীরা নানা ধরনের শ্লোগান দিয়ে শোভাযাত্রাটি আরো প্রাণচঞ্চল করে তোলে। শোভাযাত্রা শেষে আয়োজন করা হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপদেষ্টা প্রফেসর ড. এম. সাইদুর রহমান খান, ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর ড. রাশেদুল হক, বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও অর্থনীতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. তারিক সাইফুল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন রেজিস্ট্রার ড. মো. মহিউদ্দীন, ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর শহিদুর রহমান, জার্নালিজম কমিউনিকেশন অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের কো-অর্ডিনেটর মো. মশিহুর রহমান, সিএসই বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. আল মামুন, ইইই বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. নজরুল ইসলাম মন্ডল, প্রক্টর শাহরিয়ার হোসেন তালুকদারসহ বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।

মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পর্বে ছিল দলীয় ও একক গান পরিবেশন, নৃত্য, কবিতা আবৃত্তি ও ফ্যাশন শো। মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন উপদেষ্টা প্রফেসর ড. এম. সাইদুর রহমান খান। তিনি বলেন, ‘বাঙ্গালীর ঐতিহ্য হাজার বছরের। এ উৎসব সর্বজনীন, এ উৎসব সবার।’ ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর ড. রাশেদুল হকের গান পরিবেশন অনুষ্ঠানে এক 
ভিন্ন মাত্রা যোগ করে। গান পরিবেশনের শুরুতে উপাচার্য ডক্টর মুহম্মদ শহীদুল্লাহর অবদানের কথা বিশেষভাবে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, বাংলা একাডেমি কর্তৃক গঠিত বাংলা একাডেমির পঞ্জিকার তারিখ বিন্যাস কমিটির সভাপতি নিযুক্ত হন ডক্টর মুহম্মদ শহীদুল্লাহ । তাঁর নেতৃত্বে বাংলা পঞ্জিকা একটি আধুনিক ও বিজ্ঞানসম্মত রূপ পায়।

© Copyright 2021 Varendra University | Developed by IT Office, Varendra University.